শেরপুরে সাংবাদিক ও স্বেচ্ছাসেবীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন পুলিশ সুপার আজীম

প্রকাশিত: ১১:১১ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ করোনা ভাইরাসজনিত পরিস্থিতিতে সরকারি নির্দেশনায় প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের পাশাপাশি সাংবাদিক ও স্বেচ্ছাসেবীরাও ফ্রন্টলাইনে কাজ করছে বলে উল্লেখ করে স্থানীয়ভাবে পুলিশের কর্মকাণ্ডে সহায়তাসহ নানাভাবে কাজ করা সাংবাদিক ও স্বেচ্ছাসেবীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম পিপিএম। সেইসাথে তিনি বলেন, সকলে মিলে এ চলমান কর্মকাণ্ড প্রতিরোধ করতে গিয়ে একটি দেশপ্রেমের মেলবন্ধন সৃষ্টি হয়েছে। বেড়েছে কাজের উদ্দামতা। ফলে জেলা পুলিশ অত্যন্ত আশান্বিত যে, জাতির যেকোন দুর্যোগ-সংকটে সবাইকে নিয়ে সুন্দরভাবে কাজ করা সম্ভব হবে। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করা যাবে। ওইসময় তিনি উপস্থিত সকলকেই ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানান। তিনি করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্টদের সতর্কতার উপর গুরুত্বারোপ করেন। ২৩ মে শনিবার দুপুরে শহরের অষ্টমীতলাস্থ পুলিশ লাইন্সের দরবার হলে জেলার শতাধিক সাংবাদিক ও সাড়ে ৩ শতাধিক স্বেচ্ছাসেবীর হাতে ঈদ উপহার বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।


উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাব সভাপতি শরিফুর রহমান, সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম আধার, সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন, জেলা পুলিশের করোনা ইমার্জেন্সী রেসপন্স টিমের সমন্বয়ক এসএম ইমতিয়াজ চৌধুরী শৈবাল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শোয়েব হাসান শাকিল, স্বেচ্ছাসেবী সোহেল রানা, ইউসুফ আলী রবিন, ইমরান হাসান রাব্বী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) মাহমুদুল হাসান ফেরদৌস, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম, ডিআইও-১ মোহাম্মদ আবুল বাশার, ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন, নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বশির আহমেদ বাদল, নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন শাহ, শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার ও ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) সরোয়ার হোসেনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে গত ৩ দিনে জেলায় কর্মরত সকল পুলিশ সদস্যের পরিবারসহ বিভিন্ন জেলায় কর্মরত শেরপুরের অধিবাসী পুলিশ পরিবারে পৌঁছে দেওয়া হয় জেলা পুলিশের বাহারী ঈদ উপহার।