নালিতাবাড়ীতে বিনা পরিক্ষণ প্লটে ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৯:৪৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০২০

মাহফুজুর রহমান সোহাগ, নালিতাবাড়ী, শেরপুর ॥ আগাম আমন-সরিষা-নাবি বোরো শস্য বিন্যাসের আওতায় বিনা-৭-ও বিনা-১৭ সম্প্রসারনের লক্ষ্যে ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার কদমতলী (পূর্ব) গ্রামে (বিনা) পরিক্ষণ প্লটে ফসল কর্তন ও এক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষনা ইনষ্টিটিউট (বিনা) পরিক্ষন প্লটে ফসল কর্তন ও মাঠ দিবসে উপস্থিত ছিলেন, বিনা উপকেন্দ্র নালিতাবাড়ীর (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) ড. মোঃ মাহবুবুল আলম তরফদার, বিনা উপকেন্দ্র জামালপুরের (এসএসও ও ও আইসি) ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান খান, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শ.ম আব্দুল আলীম, নালিতাবাড়ী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা মোঃ ওয়াসিফ রহমান, কৃষক জাকারিয়াসহ মাঠ পর্যাযের কর্মকর্তাবৃন্দ।
কৃষক জাকারিয়া বলেন, আমি বিনা-৭ ধান লাগিয়েছি। এটি একরে ৫৫ মন ধান আসছে। এরপর আমি সরিয়া আবাদ করবো। সবার আগে এই ধান কাটা যায়। আমি আমনে এই ধানই আবাদ করি।


নালিতাবাড়ী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা মোঃ ওয়াসিফ রহমান বলেন, এই বিনা ধান -৭ ধানটি এই জমির জন্য উপযোগী। এটির চাল সুসাধু। এটি আবাদ করে কাটার পর দু ফসলী বা ত্রি ফসলী করা যায়।
বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শ.ম আব্দুল আলীম বলেন, বিনা-৭ উদ্ভাবিত স্বল্প মেয়াদী আমন জাতের ফসল এর জীবন কাল ১১০-১১৫দিন, গড় ফসল একরে ৫৫ মন। এটা করলে আবাদের পর যে কোন রবি ফসল কৃষক করতে পারবে। কৃষকরা তিন সপ্তাহ সময় হাতে বেশি পাবে।